বরিশাল নগরীতে কেজি দরে তরমুজ বিক্রি করার অপরাধে মোবাইল কোর্ট অভিযানে ৯,৭০০ টাকা জরিমানা

এপ্রিল ২৮ ২০২১, ১০:৫৪

Spread the love

 

গরমের সুস্বাদু ফল তরমুজ কম দামে পিচ হিসেবে ক্রয় করে ক্রেতাদের নিকট অধিক দামে কেজি দরে বিক্রি করছে পাশাপাশি করোনা পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্য বিধি অনুসরন না করায় মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালনা করা হয়। এমতা অবস্থায় আজ ২৮ এপ্রিল বুধবার সকালে বরিশাল জেলা প্রশাসন এর পক্ষ থেকে বাজার মনিটরিং এর অংশ হিসবে নগরীর বিভিন্ন বাজারে তিনটি মোবাইল কোর্ট টিম অভিযান পরিচালনা করেন। বরিশালের বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট জসীম উদ্দীন হায়দার এর নির্দেশনায় এবং অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট গৌতম বাড়ৈ এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালনা করেন এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট এস এম রাহাতুল ইসলাম, এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট আরাফাত হোসেন ও নিশাত ফারাবী। এসময় বাজারে অবস্থানরত ক্রেতাদের অভিযোগের ভিত্তিতে মোবাইল কোর্ট অভিযানে সত্যতা পাওয়া যায়। দেখা যায় প্রতি কেজি তরমুজ বিক্রি হচ্ছে ৫০/৬০ টাকা করে। এতে একটি ভালো তরমুজ ক্রেতাদের কিনতে হচ্ছে ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা করে যা সাধারণ মানুষের জন্য কিনে খাওয়াটা কষ্টসাধ্য। এসময় এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট এস এম রাহাতুল ইসলাম এর নেতৃত্বে মোবাইল কোর্ট অভিযানে মহানগরের বটতলা, পোর্টরোড এলাকায় মোবাইল কোর্টের অভিযান পরিচালিত হয়। এ সময় সংখ্যার ভিত্তিতে ক্রয় করা তরমুজ কেজি হিসাবে অতিরিক্ত মূল্যে বিক্রয় করায় ১ জন ব্যবসায়ীকে ১,০০০ টাকা জরিমানা করা হয়। আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় সহায়তা করেন বরিশাল র‍্যাব ৮ এর একটি টিম। পাশাপাশি অপর দুইটি অভিযানে সরকার ঘোষিত স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন, লকডাউন কার্যকর করা এবং বাজার মনিটরিং এর উদ্দেশ্যে জেলা প্রশাসন বরিশালের পক্ষ থেকে এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট আরাফাত হোসেন ও নিশাত ফারাবী এর নেতৃত্বে মহানগরের চৌমাথা, নতুন বাজার, এলাকায় মোবাইল কোর্টের অভিযান পরিচালিত হয়। এ সময় সংখ্যার ভিত্তিতে ক্রয় করা তরমুজ কেজি হিসেবে অতিরিক্ত মূল্যে বিক্রয় করায় ৫ ব্যবসায়ীকে মোট ৮,৭০০ টাকা জরিমানা করে তাৎক্ষণিক আদায় করা হয়। এসময় আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় সহায়তা করেন বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের একটি টিম। অভিযান শেষে এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট বৃন্দ জানান, জনস্বার্থে এই অভিযান অব্যাহত থাকবে।