বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগারে ধর্ষণ মামলার আসামির আত্মহত্যা

নভেম্বর ১৪ ২০২০, ০৮:৪৭

Spread the love

বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগারে নিজ কন্যাকে ধর্ষণ মামলার এক হাজতি গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। এই ঘটনায় দুই কারারক্ষীকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে কারা কর্তৃপক্ষ।

শনিবার ভোররাতে বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগারের হাসপাতালের বাথরুমে ঘটে এ ঘটনা। বরিশালের ডেপুটি জেলার মো. ইব্রাহীম জানিয়েছেন এ তথ্য। আত্মহত্যাকারী এই হাজতির নাম মো. হানিফ খলিফা।
ডেপুটি জেলার আরও জানান, দীর্ঘ সময় পরও বাথরুম থেকে ফিরে না আসায় কারা রক্ষীরা তাকে খুঁজতে গিয়ে বাথরুমের ভেতরে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান। এরপর তাকে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে রাখা হয়েছে।

জেলখানার হাসপাতালে কোয়ারেন্টাইনে ছিলেন হানিফ খলিফা। হাসপাতালের মশারী কেটে তা দিয়ে রশির মত বানিয়ে বাথরুমের পানির পাইপের সাথে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন এই হাজতি।
এ ঘটনায় ঐ সময়ে কর্তব্যরত কারারক্ষী আনসার মণ্ডল ও মো. কাওছারকে কর্তব্য অবহেলার কারণে সাময়িক বরখাস্ত করেছে কারা কর্তৃপক্ষ। তার বাড়ি বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার মধুকাঠি গ্রামে।
নিজ কন্যাকে ধর্ষণের অভিযোগে গত ৩০ সেপ্টেম্বর বরিশালের এয়ারপোর্ট থানায় তার স্ত্রী বাদী হয়ে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। ঐ মামলার আসামি হিসেবে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করে। ১ অক্টোবর থেকে আদালতের নির্দেশে তাকে কারাগারে প্রেরণ করে পুলিশ