বাউফলে ভুল চিকিৎসায় দুই প্রসূতির মৃত্যুর ঘটনায় অভিযুক্ত চিকিৎসক দম্পতিকে অস্ত্রোপাচার ও এ্যানেসথেসিয়া দেয়া থেকে বিরত থাকার নির্দেশ

অক্টোবর ২১ ২০২০, ১৩:৫৩

Spread the love

বিশেষ প্রতিনিধি বাউফল ॥ বাউফলে ভুল চিকিৎসায় দুই প্রসূতির মৃত্যুর ঘটনায় অভিযুক্ত চিকিৎসক দম্পতিকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত অস্ত্রোপাচার ও এ্যানেসথেসিয়া দেয়া থেকে বিরত থাকার নির্দেশ হয়েছে। পটুয়াখালীর জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ মোহাম্মদ জাহাংগীর আলম বুধবার এ নির্দেশ দেন। ওই চিকিৎক দম্পতি হলেন ডাঃ নয়ন সরকার ও ডাঃ পূজা ভান্ডারী।

বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ প্রশান্ত কুমার সাহা জানান, ডাঃ নয়ন সরকারকে করোনাকালীন সময় (৩৯তম বিসিএস) পটুয়াখালী ২৫০ শষ্যা হাসপাতালে নিয়োগ দেয়া হলেও তিনি ও তার স্ত্রী ডাঃ পূজা ভান্ডারী বাউফলের বিভিন্ন ক্লিনিকে অস্ত্রোপাচার ও এ্যানেসথেসিয়া দিয়ে আসছেন। গত রবিবার (১৮ অক্টোবর) কালিশুরী মাজেদা মেমোরিয়াল ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে হ্যাপী বেগম (২৪) নামের এক প্রসূতির সিজার করার পরে ওই দিন ভোর রাতে তিনি মারা যান। এর আগে ত ১৪ সেপ্টেম্বর ওই দম্পতি শহরের সেবা ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে রিপা রানী (২৫) নামের এক প্রসূতির অস্ত্রোপাচার করার পর রাতে তিনি মারা যান।

এ বিষয়ে দৈনিক জনকণ্ঠসহ বিভিন্ন সংবাদপত্রে খবর প্রকাশের পর পটুয়াখালী জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ মোহাম্মদ জাহাংগীর আলম পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত ওই চিকিৎসক দম্পতিকে অস্ত্রোপাচার ও এ্যানেসথেসিয়া দেয়া থেকে বিরত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন এবং আগামী ২৪ অক্টোবর তাদেরকে চিকিৎসা সনদ ও সিজার ও এ্যানেসথেসিয়া দেয়ার বৈধতার সকল সনদসহ সিভিল সার্জনের কার্যালয়ে উপস্থিত থাকার জন্যও নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এছাড়াও একই দিন সেবা ও মাজেদা মেমোরিয়াল ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের ব্যবস্থাপনা পরিচালকদ্বয়কে ভর্তির রেস্ট্রিার, সংশ্লিষ্ট সকল কাগজপত্রসহ অপারেশনকারী সার্জন ও এ্যানেসথেসিয়ার চিকিৎসককে (মেডিকেল টিম) জেলা সিভিল সার্জনের কার্যালয়ে উপস্থিত থাকার জন্য চিঠি দেয়া হয়েছে।