বরিশালে মাদক দিয়ে ফাঁসাতে হাতে হ্যান্ডকাপ অতঃপর হ্যান্ডকাপ নিয়ে পলায়ন

অক্টোবর ১৯ ২০২০, ১৬:০৭

Spread the love

মাদক দিয়ে ফাঁসিয়ে দিতে হাতে হ্যান্ডকাপ পরান বরিশাল মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের ইন্সপেক্টর মালেক। পরে এলাকাবাসীর তোপের মুখে সটকে পরে ঐ বিতর্কিত অফিসার। স্থানীয় একাধীক সূত্রে জানা যায় আজ সোমবার বিকেলে স্টোডিয়ামে ফুটবল খেলা শেষে বাসায় ফেরার পথে এই ঘটনা ঘটায় বরিশাল মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের ইন্সপেক্টর মালেক। ঘটনা সূত্রে জানা যায় পলাশপুরের শাহাদত হোসেনের ছেলে রিদয়(২২) আজ বিকেলে ফুটবল খেলে শেষে বাসায় ফেরার পথে স্টোডিয়াম সংলগ্নে রিদয়কে দার করিয়ে কিছু না বলেই তার হাতে হ্যান্ডকাপ পরান মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রক অধিদপ্তরের বিতর্কিত অফিসার ইন্সপেক্টর মালেক। এসময় মালেকের সাথে থাকা গাঁজা দেখিয়ে রিদয়কে বলে তোকে গাঁজা দিয়ে চালান দেবো। এসময় রিদয় বার বার বলেন আপনার সাথে আমার কি কোনো বিরোধ আছে? কেন আমাকে মাদক দিয়ে ফাঁসাচ্ছেন? এ কথা শুনে লোকজন জড়ো হলে বাকবিতন্ড শুরু হয় মালেকের সাথে। বাকবিতন্ড চলার ফাঁকে রিদয় হ্যান্ডকাপ পরিহিত অবস্থায় পালিয়ে এলাকায় গিয়ে স্থানীয় কাউন্সিলর কে ঘটনা খুলে বলেন । এদিকে হ্যান্ডকাপ উদ্বার করতে পলাশপুরে ইন্সপেক্টর মালেক গেলে সেখানে উপস্থিত সবাই জানতে চায় কেন রিদয়কে মাদক দিয়ে ফাঁসাতে চেয়েছিলেন? স্থানীয় ও কাউন্সিলরদের কথার কোনো সঠিক উত্তর দিতে পারেননি বিতর্কিত ইন্সপেক্টর মালেক। তখন স্থানীয়দের কাছে ক্ষমা চেয়ে মালেক বলেন ইকটু ভুল বোঝাবুঝির জন্য এমন ঘটনা ঘটেছে সে জন্য আমি ক্ষমা চাই। পরে ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রনি ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর জাহানারার উপস্থিতিতে ইন্সপেক্টর মালেককে হ্যান্ডকাপ দিয়ে দেয়। এই বিষয়ে জানতে চাইলে সংবাদকর্মীদের মালেক নিউজটি প্রকাশ না করার অনুরোধ করেন এবং বলেন আমি আপনাদের সাথে দেখা করবো।