বাউফলে ওসি ও এসআই’র বিরুদ্ধে সাংবাদিক সম্মেলন

অক্টোবর ১৪ ২০২০, ১১:২২

rpt

Spread the love

বাউফল থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমান ও এসআই শেখ জাহিদ আলমের বিরুদ্ধে সাংবাদিক সম্মেলন করা হয়েছে। মাহাবুব আলম মোল্লা নামের এক যুবলীগ নেতা বুধবার (১৪অক্টোবর) বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে স্থানীয় একটি রেস্টুরেন্টে এ সাংবাদিক সম্মেলন করেন।
সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে নাজিরপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সিনিয়ির সহসভাপতি মাহাবুব আলম মোল্লা বলেন, একই এলাকার সাবেক ছাত্রদল নেতা বর্তমানে আওয়ামী লীগের অনুপ্রবেশকারী জসিম উদ্দিন আকনের কাছে পাওনা টাকা নিয়ে তার বিরোধ চলে আসছিল। এর জেড় ধরে চলতি বছর ২৫ জানুয়ারি রাতে জসিম আকনের নির্দেশে তার পালিত কয়েক সন্ত্রাসী তাকে এলোপাতাড়ি ভাবে কুপয়ে ও পিটিয়ে জখম করে।
স্বজনরা গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে বাউফল হাসপাতালে নিয়ে আসলে সেখান থেকে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রেফাড করা হয়। তিনি প্রথমে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে গিয়ে ভর্তি হন। পরে সেখান থেকে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
এ ঘটনায় তার স্ত্রী শিলা বেগম ২৭ জানুয়ারি জসিম আকনকে হুকুমের আসামী করে ৩ জনের বিরুদ্ধে বাউফল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। (মামলা নং ২৫ তারিখ২৭/০১/২০২০) বিভিন্ন সময় এই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পরিবর্তন হয়। সর্বশেষ শেখ জাহিদ আলমকে এই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা হিসাবে নিযুক্ত করা হয়। এর মামলার চূড়ান্ত প্রতিবেদন (চার্জশীট) দেয়ার নামে ওসি মোস্তাফিজুর রহমান ও এসআই শেখ জাহিদ আলম তার কাছে ১ লাখ টাকা ঘুষ দাবি করেন। তিনি ঘুষ দিতে অপরাগতা প্রকাশ করায় ওসি ও তদন্তকারী কর্মকর্তা আসামীদের কাছ থেকে মোটা অংকের ঘুষ নিয়ে তদন্তকারী কর্মকর্তা শেখ জাহিদ তার ও স্বাক্ষীদের কোন প্রকার বক্ত গ্রহণ না করে মামলার প্রধান আসামী জসিম উদ্দিন আকনকে বাদ দিয়ে আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে দেয়া মেডিকেল রিপোর্ট (এমসি) আমলে না নিয়ে বাউফল হাসপাতালের প্রাথমিক চিকিৎসার মেডিকেল রিপোর্ট দিয়ে সাধারন ধারায় আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন (চার্জশীট) দাখিল করে তাকে ন্যায় বিচার থেকে বঞ্ছিত করেছেন।
সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি পুনরায় মামলটি সিআইডির তদন্ত চেয়ে পুলিশের আইজিপির হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। সাংবাদিক সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন যুবলীগ নেতা মাহাবুব আলমের বড় ভাই আবদুল বারেক মোল্লা ও ইউসুফ মোল্লা প্রমূখ।
এ ব্যাপারে বাউফল থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমান ঘুষ দাবি বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন,‘তদন্ত কর্মকর্তার গাফিলতি থাকলে সম্পূরক চার্জশীট প্রদানের সুযোগ রয়েছে।’